ডাচবাংলা এজেন্ট ব্যাংকিং সেবা কীভাবে উপভোগ করবেন

গ্রামীণ সুবিধা বঞ্চিত পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর কাছে ব্যাংকিং সুবিধা পৌঁছে দিতে এজেন্ট ব্যাংকিং চালুর উদ্যোগ নেয় কেন্দ্রীয় ব্যাংক। সুবিধা বঞ্চিত প্রান্তিক জনগোষ্ঠির কাছে ব্যাংকিং সেবা পৌঁছে দিতে অগ্রণী ভূমিকা পালন করছে এজেন্ট ব্যাংকিং। যেখানে ব্যাংকের শাখা নেই সেখানেও মিলছে ব্যাংকিং সেবা এবং গ্রাহকদের বাড়তি চার্জও লাগছে না বরং বাড়তি সুযোগ সুবিধা উপভোগ করা সম্ভব হচ্ছে। এতে করে দিনদিন জনপ্রিয় উঠেছে এজেন্ট ব্যাংকিং, বেড়েই চলছে গ্রাহক সংখ্যা। আমাদের দেশের বেশ কয়েকটি ব্যাংক এজেন্ট ব্যাংকিং সেবা প্রদান শুরু করেছে। এসব ব্যাংকগুলোর মধ্যে সেবা প্রদানের দৃষ্টিকোন থেকে ডাচবাংলা এজেন্ট ব্যাংকিং গ্রাহকদের কাছে বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। ডাচবাংলা ব্যাংকের এজেন্ট ব্যাংকিং সেবা সম্পর্কে খুঁটিনাটি তথ্য জানতে এ আর্টিকেলটি পড়ুন।

এজেন্ট ব্যাংকিং অ্যাকাউন্ট খোলার জন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্র



★ জাতীয় পরিচয় সনদপত্র/ পাসপোর্ট / লাইসেন্সের ১টি ফটোকপি।
★ পাসপোর্ট সাইজের ২ কপি ছবি।
★ নমিনীর জাতীয় পরিচয় সনদপত্র/ পাসপোর্টের ১টি ফটোকপি।
★ নমিনীর ১ কপি ছবি।


সুবিধাসমূহ


★ পছন্দমতো কারেন্ট, সেভিংস ফিক্সড ডিপোজিট ইত্যাদি অ্যাকাউন্ট খুলতে পারবেন।
★ অ্যাকাউন্ট রেজিস্ট্রেশন ফি ফ্রি।
★ মাত্র ১০ টাকা জমা দিয়েই একটি সেভিংস অ্যাকাউন্ট খুলতে পারবেন। আর কারেন্ট অ্যাকাউন্ট খুলতে সর্বনিম্ন ১০০ টাকা এবং ফিক্সড ডিপোজিট করতে সর্বনিম্ন ১০ হাজার টাকা অ্যাকাউন্টে জমা দিতে হবে।
★ আপনার সেভিংস অ্যাকাউন্টে ১০ টাকা থেকে ৫ লক্ষ টাকার মধ্যে জমা থাকলে মাসিক হিসাবে ১.৫% হারে, ৫ লাখ টাকা থেকে ১৫ লাখ টাকার মধ্যে জমা থাকলে ২% এবং ১৫ লক্ষ টাকার উপরে জমা থাকলে ২.৫% হারে ইন্টারেস্ট সুবিধা পাবেন।
★ বায়োমেট্রিক মেশিন ব্যবহার করে গ্রাহকের আঙ্গুলের ছাপ সনাক্ত করণের মাধ্যমে লেনদেন কার্যক্রম পরিচালিত হয়। ফলে ১০০% নিরাপদ লেনদেন এর সুবিধা পাবেন।
★ যেকোনো স্থানে থেকে অনলাইন ব্যাংকিংসহ সবধরনের সেবাসমূহ উপভোগ করতে পারবেন।
★ বিদেশ থেকে অর্থ গ্রহণ করলে ১% বোনাস পাওয়ার সুযোগ।
★ প্রাথমিকভাবে ফ্রি ডেবিট কার্ড পাবেন, যার মাধ্যমে গ্রাহক ডাচ-বাংলা ব্যাংকের ফাস্ট ট্রাক ও এটিএম বুথ হতে কোনো খরচ ছাড়াই টাকা উত্তোলন করতে পারবেন।
★ডিবিবিএল ব্রাঞ্চ ও ফাস্ট ট্রাকে টাকা জমা ও উত্তোলন করতে কোনো চার্জ দিতে হবে না।
★ ফ্রি এসএমএস অ্যালার্ট সার্ভিস উপভোগ করতে পারবেন।
★সপ্তাহে সাতদিন লেনদেনের সুযোগ।
★ অ্যাকাউন্ট ক্লোজিং চার্জ নেই।
★ সহজেই বেতন আদান-প্রদান ও পেমেন্ট করতে পারবেন।
★ অ্যাকাউন্ট মেইনটেইন্যান্স ফি দিতে হবে না।
★ নিজস্ব এলাকায় এজেন্ট পয়েন্ট থেকে টাকা জমা ও উত্তোলন ফ্রি।
★ ব্যালান্স চেক ও স্টেটমেন্ট দেখা ফ্রি।
★ নিজস্ব এলাকায় এক অ্যাকাউন্ট থেকে অন্য অ্যকাউন্টে টাকা পাঠানো ফ্রি।


শর্তাবলী ও অসুবিধাসমূহ


★ প্রতিবছর এটিএম কার্ড নবায়ন করতে ২৩০ টাকা চার্জ দিতে হবে।
★ এটিএম নেটওয়ার্ক ফি বাবদ বার্ষিক ১১৫ টাকা চার্জ দিতে হবে।
★ এটিএম থেকে একদিনে ৫০ হাজার টাকার বেশি উত্তোলন করতে পারবেন না।
★ নিজস্ব এলাকার বাইরে টাকা জমা দেওয়ার ক্ষেত্রে .২৫% ও টাকা উত্তোলনের ক্ষেত্রে . ৫০% হারে চার্জ প্রযোজ্য হবে।
★ নিজস্ব এলাকার বাইরে এক অ্যাকাউন্ট থেকে অন্য অ্যকাউন্টে টাকা পাঠালে. ২৫% হারে চার্জ প্রযোজ্য হবে।
★ সেভিংস অ্যাকাউন্টের ক্ষেত্রে সাব এজেন্ট পয়েন্ট থেকে একদিনে সর্বোচ্চ ৪ লাখ ও ব্যাংকের শাখা থেকে সর্বোচ্চ ৫ লাখ টাকা জমা দিতে পারবেন। আর কারেন্ট অ্যাকাউন্টের ক্ষেত্রে একদিনে সর্বোচ্চ ৬ লাখ টাকা ডিপোজিট করতে পারবেন।
★ সেভিংস অ্যাকাউন্টের ক্ষেত্রে একদিনে সর্বোচ্চ ৫ লাখ টাকা ফান্ড ট্রান্সফার করতে পারবেন। আর কারেন্ট অ্যাকাউন্টের ক্ষেত্রে একদিনে সর্বোচ্চ ১৫ লাখ টাকা ফান্ড ট্রান্সফার করতে পারবেন।
★ সেভিংস অ্যাকাউন্টের ক্ষেত্রে সাব এজেন্ট পয়েন্ট থেকে একদিনে সর্বোচ্চ ৩ লাখ ও ব্যাংকের শাখা থেকে সর্বোচ্চ ৫ লাখ টাকা উত্তোলন করতে পারবেন। আর কারেন্ট অ্যাকাউন্টের ক্ষেত্রে একদিনে সর্বোচ্চ ৫ লাখ টাকা উত্তোলন করতে পারবেন।
★ আপাতত চেকবই পাবেন না। তবে অতি শীঘ্রই চেকবই সেবা চালু হবে।

অ্যাকাউন্ট খোলার প্রক্রিয়া 


এজেন্ট ব্যাংক অ্যাকাউন্ট খোলার জন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সহ নিকটস্থ সাব এজেন্ট পয়েন্টে আসুন। সাধারণত ব্যাংকের শাখায় এজেন্ট ব্যাংক অ্যাকাউন্ট খোলা হয় না। তাই সাব এজেন্ট পয়েন্ট থেকেই অ্যাকাউন্টটি খুলতে হবে। সাব এজেন্ট পয়েন্ট থেকে ফরম সংগ্রহ করে যথাযথভাবে পূরণ করে প্রয়োজনীয় কাগজসহ জমা দিন। এবার ফিংগার প্রিন্ট দিয়ে অ্যাকাউন্ট খোলার প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ করুন। এবার ডাচবাংলা ব্যাংকের এজেন্ট ব্যাংকিং সেবা সমূহ উপভোগ করুন।

কোন মন্তব্য নেই

Blogger দ্বারা পরিচালিত.