ইতিহাস বিখ্যাত এক তরুণ তুর্কি মোস্তফা কামাল আতাতুর্ক


মোস্তফা ১৮৮১ সালে তৎকালীন অটোম্যান সাম্রাজ্যের একটি বিখ্যাত বন্দর স্যালিকিনাতে জন্মগ্রহণ করেন।
বাল্যকালে তার নাম ছিল মোস্তফা। মাধ্যমিকে পড়াকালীন তার শিক্ষক তার ডাক নাম দেন কামাল। তারপর থেকেই মোস্তফা কামাল নামে পরিচিতি লাভ করেন।
আর তার পিতা হলেন আলী রেজা এবং মাতা জোবাইদা। বাল্যকালেই তার পিতা মারা যায়, তবে তার জীবনে তার পিতার প্রভাব অনস্বীকার্য, বলে মনে করতেন মোস্তফা কামাল আতাতুর্ক।
ছোটবেলা থেকেই তিনি সামরিক বাহিনীতে যোগদানের ইচ্ছা পোষণ করেছিলেন।
 তাই তিনি মিলিটারি স্কুলে ভর্তি হন ১৮৯৫ সালে। তারপর ইস্তাম্বুলের ওয়ার কলেজে ভর্তি হয়ে ১৯০২ সালে তিনি সেকেন্ড লেফটেন্যান্ট পদবী গ্রহণ করেন।
 তারপর জেনারেল স্টাফ কলেজে ভর্তি হয়ে ১৯০৫ সালে অন্যতম একজন সেরা সামরিক কর্মকর্তা হিসেবে নিয়োগপ্রাপ্ত হন।
তরুণ তুর্কি বিপ্লবের সময় মোস্তফা কামাল একজন সেরানায়ক ছিলেন।
১৯১৬ সালে তিনি জেনারেল পদে উন্নীত হন আর তখন থেকেই তার নামের সাথে যুক্ত হয় পাশা।
প্রথম বিশ্বযুদ্ধে যখন তুরস্কের পরাজয় ঘটে, তখন মোস্তফা কামাল ন্যাশনাল পার্টি নামে একটি দল গঠন করেন।
 আর সে সময়ে গ্রিক এবং বিভিন্ন বিদেশী শক্তির তুরস্কে উপরে প্রভাব বিস্তার ছিল।
মোস্তফা কামাল সেনাবাহিনীর সাহায্য নিয়ে তুরস্কের বিভিন্ন শত্রুদেরকে দমন করেন।
১৯২৩ সালের জুলাইতে একটি নতুন শান্তি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়, যেটাতে তুরস্কে স্বাধীন দেশ হিসেবে উল্লেখ করা হয়।
১৯২৩ সালের অক্টোবরেই আঙ্কারার জাতীয় সংসদ তুরস্ককে প্রজাতন্ত্র হিসেবে ঘোষণা করা হয়।
আর মোস্তফা কামাল হন এই প্রজাতন্ত্রের নতুন ও প্রথম রাষ্ট্রপতি।
তিনি শাসন ক্ষমতা গ্রহণ করার পরেই  তুরস্ককে আধুনিক রাষ্ট্রে রূপদানের জন্য, বিভিন্ন ধরনের পদক্ষেপ গ্রহণ করেন।
তিনি ইউরোপীয় আদলে আইন প্রণয়ন ও বিভিন্ন ব্যবস্থা গ্রহণ করেন।
আর তার শাসনামলেই তুরস্কে ব্যাপক শিল্পায়ন সাধিত হয়।
তার শাসনকালেই তুরস্ক লীগ অব ন্যাশনে যোগ দেয়।
 আর নারীরা ভোটাধিকার লাভ করে এবং সাক্ষরতার হারও বাড়তে থাকে।
আর এভাবেই তিনি তুরস্ককে আধুনিক রাষ্ট্রে রূপান্তরিত করেন।
তার নানাবিধ অবদানের জন্য তিনি তুর্কি জাতির জনক এবং মোস্তফা কামাল আতাতুর্ক হিসেবে বিশ্বব্যাপী পরিচিতি লাভ করেন।
এই সাহসী বীর ১৯৩৮ সালের ১০ নভেম্বর ইস্তাম্বুলে তার নিজ বাসভবনে মৃত্যুবরণ করেন। তিনি মৃত্যুবরণ করলেও তার নাম ইতিহাসে আজও উজ্জ্বল হয়ে জ্বলছে।


কোন মন্তব্য নেই

Blogger দ্বারা পরিচালিত.